বৃহস্পতিবার, ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মাস্ক না পরায় প্রধানমন্ত্রীকে জরিমানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হচ্ছে বিশ্ববাসীকে। এর মধ্যে কিছু কিছু দেশ তাদের জনগণকে কঠোরভাবে মানতে বাধ্য করছে করোনাকালীন নিয়মকানুন। এরকম একটি দেশ হলো বুলগেরিয়া, যেখানে নিয়মের কড়াকড়ি রয়েছে। এই দেশটির প্রধানমন্ত্রীও এই নিয়ম থেকে রক্ষা পাননি। মাস্ক না পরার কারণে বুলগেরিয়া প্রধানমন্ত্রীকে জরিমানাও দিতে হয়েছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, মঙ্গলবার একটি পুরনো গির্জা পরিদর্শনে যান প্রধানমন্ত্রী বয়কো বোরিসোভ। সেই সময়ে তার মুখে সুরক্ষামূলক মাস্ক না থাকায় তাকে বুলগেরিয়ান মুদ্রায় ৩০০ লেভ (১৭৪ মার্কিন ডলার) জরিমানা করা হয়েছে। এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এ মাসের শুরুতে করোনার সংক্রমণ কমায় লকডাউন শিথিল করেছিল বুলগেরিয়া। কিন্তু গত সপ্তাহে আবার সাপ্তাহিক রেকর্ড করোনা শনাক্ত হলে সোমবার দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী কিরিল আনানিয়েভ সব ধরনের জনসমাগমস্থলে মাস্ক পরার আদেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীকে জরিমানার বিষয়ে বুলগেরিয়ান স্বাস্থ্যমন্ত্রী কিরিল আনানিয়েভ জানিয়েছেন, রিলা মোনাসটারি গির্জায় সুরক্ষা মাস্ক ছাড়াই গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তাই নিয়মানুযায়ী তার জরিমানা করা হয়েছে। ওই সময় তার যেসব সফরসঙ্গীরা মাস্ক পড়েননি, তাদের সবাইকে জরিমানা করা হবে বলে জানান তিনি।

গির্জায় বরিসোভের সঙ্গে মাস্ক না পরা সাংবাদিক, ফটোগ্রাফার ও ক্যামেরাপারসনদেরও জরিমানা করা হবে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। তবে মাস্ক না পরায় পাদ্রীদেরও জরিমানা হবে কিনা তা নিশ্চিত জানা যায়নি।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারসে দেয়া তথ্যানুযায়ী, বুলগেরিয়াতে এখন পর্যন্ত করোনায় মাত্র ৩ হাজার ৯৮৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ২০৭ জন। তবে মহামারীর শুরুতে বেশ কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে বেশ সুফল পেয়েছিল দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

তাই সংক্রমণের নতুন ঢেউয়ের আশঙ্কায় আবার বাস ও ট্রেনের মতো গণপরিবহন তো বটেই, ইনডোর পাবলিক ভেন্যুতেও মাস্ক পরার আদেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনানিয়েভ।

এই বিভাগের আরো খবর